Breaking News

Tag Archives: Video

রাজধানীতে ধর্ষণের শিকার দুই কিশোরী, গ্রেপ্তার ৩

রাজধানীর কদমতলী এলাকায় দুই কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। ভুক্তভোগীদের একজনের বয়স ১৩ বছর, অন্যজনের ১৫ বছর। গতকাল রবিবার রাত ১১টার দিকে তাদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পুলিশ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

শনিবার রাত ১০টা থেকে গতকাল ভোর ৫টার মধ্যে দুই কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়। তারা দুজন বান্ধবী। এক কিশোরীর ভাবি কদমতলী থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন সোহেল ব্যাপারী (৩৮), রানা ব্যাপারী (৩২) ও আকতার আলী (৩৮)।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, দুই কিশোরী কদমতলী থানাধীন শ্যামপুরের নোয়াখালী পট্টিতে পাশাপাশি থাকে। আসামিরাও থাকতেন একই এলাকায়। শনিবার রাতে দুই কিশোরী একই বাসায় ছিল। আসামিরা বাসায় ঢুকে তাদের ধর্ষণ করে। মামলা হওয়ার পর তাদের হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ।

এ বিষয়ে কদমতলী থানার ওসি জামাল উদ্দিন মীর কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এ ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। এ বিষয়ে তারা তথ্য দিচ্ছে।’

বিশ্বচ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ

গ্যালারিতে ঢাক-ঢোল ও তবলার সঙ্গে গর্জনের সুর, ‘বাংলাদেশ’, ‘বাংলাদেশ’। উড়ছে ৩০ লাখ শহীদের রক্তে ভেজা লাল-সবুজের পতাকা। উল্টোদিকে ভারতীয় পতাকার ছায়াও খুঁজে পাওয়া গেলনা। বাংলাদেশ বিশ্বচ্যাম্পিয়ন! না। স্বপ্ন নয়, সত্যি। প্রায় দশ হাজার কিলোমিটার দূরে, সুদূর দক্ষিণ আফ্রিকার পচেফস্ট্রুমে অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ১৩তম আসরের ফাইনালে ভারতকে ডার্কওয়াথ লুইস পদ্ধতিতে ৩ উইকেটে হারায় টাইগার যুবারা।
যুবাদের বিজয়ের এই দিনে একই সময় পাকিস্তানের রাওয়ালপিন্ডিতে টেস্ট ম্যাচ খেলছিল বাংলাদেশ জাতীয় দলও। অথচ ছোটরা যেন একবারে আড়াল করে দিয়েছে বড়দের। চায়ের দোকানের আড্ডা, জায়ান্ট স্ক্রিণে সমর্থকদের হৈ-হুল্লোড় ও স্থানীয় টেলিভিশনের দোকানে ছিল উপচে পড়া ভীড়। প্রতিটি রানে, প্রতিটি উইকেটে পড়ছিল করতালি, উইকেট পতনে ছিল আক্ষেপের হা-হুতাশ। ক্রিকেটের ইতিহাসে প্রতিবারই বড়দের আড়ালে থেকে যায় ছোটদের পারফরমেন্স। কিন্তু ছোটরা চিনিয়ে দিল নিজেদের জাত। তাইতো ম্যাচ শেষে অধিনায়ক আকবরের কন্ঠে ভেসে উঠল, ‘দর্শক-সমর্থকরাই ছিল আমাদের দ্বাদশ ব্যক্তি।’
সর্বোচ্চ চারবারের চ্যাম্পিয়নদের মাত্র ১৭৭ রানে গুটিয়ে দেয়ার পর বাংলাদেশও খেলে যাচ্ছিল স্বাভাবিক ধারায়। মাঝে এক পষলা বৃষ্টিতে লক্ষ্য কমে দাঁড়ায় ৪৬ ওভারে ১৭০ রানের। জয় নিশ্চিত করতে এই লক্ষ্যে কোন সমস্যা হয়নি। উপমহাদেশে মাত্র ১৩ বছর বয়সে সিংহাসনে আসীন হয়েছিলেন জালাল উদ্দিন মোহাম্মদ আকবর (আকবর দ্য গ্রেট), আর আকবর আলী ১৮ বছরে জিতলেন বিশ্বকাপ। বীরোচিত ব্যাটিংয়ে ফাইনাল সেরার পুরস্কারও ওঠে বাংলাদেশ অধিনায়কের হাতেই।

জাতীয় বা বয়সভিত্তিক পর্যায়ে বাংলাদেশের কোনো দল আইসিসি আয়োজিত বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলল এই প্রথম। সেই তুলনায় ভারত এই মঞ্চে বেশ পুরোনো। টুর্নামেন্টের মোট ১৩ আসরের সাতটিতেই ফাইনাল খেলেছে ভারতের অন‚র্ধ্ব-১৯ দল, চ্যাম্পিয়ন হয়েছে চারটিতে। ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন হিসেবে এবারও মাঠে নেমেছিল তারা। বিপরীতে বাংলাদেশের এর আগে সর্বোচ্চ সাফল্য ছিল ২০১৬-তে সেমিফাইনাল খেলা। সাকিব আল হাসান-মুশফিকুর রহিম-মেহেদী হাসান মিরাজদের উত্তরসূরীরা তাই নতুন এক ইতিহাসই গড়ে ফেলল। যেই ইতিহাস মুছে দিয়েছে সাবেকদের সব হারের যন্ত্রণা।

গতকাল শিরোপাজয়ের লক্ষ্য ছিল ১৭৮ রান। ব্যাট হাতে পারভেজ হোসেন ইমন ও তানজিদ হাসান। তাদের আত্মবিশ্বাসের সামনে অনেকটা অসহায় হয়ে পড়েছিল এবারের আসরে সব প্রতিপক্ষকে অলআউট করা ভারতীয় বোলাররা। ৮ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৪৪ রান। পরের ওভারে রবি বিশনোইকে মাঠের বাইরে উড়িয়ে দলীয় পঞ্চাশ পূর্ণ করেন তানজিদ। কিন্তু তার তিন বল পরেই একটি গুগলি ঠিকমতো পড়তে না পেরে ভুল শটে ১৭ রানে ক্যাচ আউটে ফেরেন তানজিদ। এই উইকেট হারানোর পর আরেকটি ধাক্কা বাংলাদেশ খায় ওপেনার ইমন ২৫ রানে রিটায়ার্ড হার্ট হলে। দশম ওভারে আকাশ সিংয়ের বলে পায়ে চোট পান তিনি, মাঠে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে কয়েক ওভার খেললেও মাঠ ছাড়তে হয়েছে।
এরপর হঠাৎই ছন্দপতন। দলীয় সংগ্রহ ৬২ থেকে ৬৫তে যেতেই ফিরে যান সেমিফাইনালের সেঞ্চুরিয়ান মাহমুদুল হাসান জয় (৮), তৈহিদ হৃদয় (০) ও সাহাদাত হোসেন (১)। এই তিনটি উইকেটই তুলে নেন সেই রবি বিশনোই। তারপর শামীম হোসেনকে নিয়ে এগিয়ে যাওয়া চেষ্টা করেছেন অধিনায়ক আকবর আলী। ৭ রানে সুশান্ত মিশ্রর বলে ক্যাচ আউটে ফেরেন শামীম। বলহাতে দুর্দান্ত অভিষেক একই বোলারের দ্বিতীয় শিকারে পরিনত হন। অথচ বিদায়ের এক বল আগেই পেয়েছিলেন জীবন। কাজে লাগালেন কই? এরপর অধিনায়কের সঙ্গী হন রিটায়ার্ড হার্ট থেকে ফেরা ইমন। ৪১ রানের চমৎকার একটি জুটি ভেঙে যায় বাঁহাতি ওপেনারের বিদায়ে। জাসওয়ালের বলে ক্যাচ আউট হওয়ার আগে ৪৭ রান করেন ইমন। ৪১ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ তখন ৭ উইকেটে ১৬৩। এরপরই বৃষ্টি। নতুন টার্গেট দাঁড়ায় ৪৬ ওভারে ১৭০ রান। আবার ব্যাটিংয়ে নামার পর ৩০ বলে প্রয়োজন ছিল ৭ রান। সেই রান তাড়া করতে ৭ বলের বেশি সময় নেয়নি ৪৩ রানে অপরাজিত থাকা আকবর। বিশনোই সর্বোচ্চ ৪টি উইকেট নেন। এছাড়া মিশ্র নেন দুটি উইকেট। একটি উইকেট নিয়েছেন জাসওয়াল।

এর আগে টস জিতে ভারতকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় বাংলাদেশ। সতর্ক শুরু করে গতবারের চ্যাম্পিয়নরা। সপ্তম ওভারে গত ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান দিব্যাংশ সাক্সেনাকে (২) ফেরান অভিষেক দাস। ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে ভারতীয় ওপেনারের ক্যাচ নেন মাহমুদুল হাসান জয়। এরপর জাসওয়াল ও তিলক ভার্মার ৯৪ রানের শক্ত জুটি ভাঙেন তানজিম হাসান সাকিব। অধিনায়ক প্রিয়ম গর্গও বেশিক্ষণ ক্রিজে থাকতে পারেননি। উইকেটটি নেন রাকিবুল হাসান।
ভারতকে অল্প রানে আটকে রাখতে বড় ভ‚মিকা শরিফুলের। ৪০তম ওভারের পঞ্চম বলে ৮৮ রান করা জাসওয়ালকে ও পরের বলে সিদ্ধেশ বীরকেও এলবিডব্লিউ করেন বাঁহাতি পেসার। এই ধাক্কায় ভেঙে পড়ে ভারতের ব্যাটিং অর্ডার। টানা দুই ওভারে হয় দুটি রান আউট। এর রেশ কাটতে না কাটতেই পরের ওভারের প্রথম ও শেষ বলে দুটি উইকেট নেন অভিষেক। বোল্ড হন আনকোলেকার (৩)। কার্তিক ত্যাগী রানের খাতা না খুলে আকবরের গ্লাভসে ধরা পড়েন। উইকেট হারানোর মিছিল কিছুক্ষণের জন্য থেমেছিল আকাশ সিংয়ের সঙ্গে সুশান্ত মিশ্রের জুটিতে। অবশ্য ৫ রানের বেশি তারা যোগ করতে পারেননি। ৪৮তম ওভারে সাকিবের দ্বিতীয় বলে ডিপ থার্ড ম্যানে সুশান্তের (৩) দারুণ ক্যাচ ধরেন শরিফুল। তাতে ২০০ রানের অনেক আগেই গুটিয়ে যায় চারবারের চ্যাম্পিয়ন ভারত। বাংলাদেশের পক্ষে অভিষেক সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নেন। দুটি করে পান সাকিব ও শরিফুল।
সা¤প্রতিক অতীত বিবেচনায় অন‚র্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ফাইনাল বাংলাদেশের জন্য ছিল প্রতিশোধের মঞ্চও। গত বছরে ভারতের কাছে দুটি ফাইনাল হেরেছে বাংলাদেশ। একটি শ্রীলংকায় অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপের ফাইনালে, আরেকটি ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টে। এর আগের বছর এশিয়া কাপের সেমিতেও প্রতিবেশী দেশটির কাছে হেরেছিল বাংলাদেশ।

এবারের আসরে জিম্বাবুয়ে ও স্কটল্যান্ডকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা করা, এরপর দক্ষিণ আফ্রিকাকে ১০৪ রানে উড়িয়ে দিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো সেমি। ধারা ধরে রেখে সেমিতে নিউজিল্যান্ডকে ২১১ রানে আটকে অভিজ্ঞতার স্ম্ফুরণে ৬ উইকেটে ফাইনাল নিশ্চিতকরণ। ফাইনালে ওঠার পথে মাহমুদুল হাসান জয়ের সেঞ্চুরি, কোয়ার্টারে তানজিম হাসান তামিম, তৌহিদ হৃদয় ও শাহাদাত হোসেনের ফিফটি, টুর্নামেন্টজুড়ে বাঁহাতি স্পিনে রাকিবুল হাসানের হ্যাটট্রিক ও ইনিংসে ৫ উইকেটের মতো সাফল্য, বাঁহাতি পেসে শরীফুল ইসলাম ও তানজিদ হাসান সাকিবের নিয়মিত ব্রেক থ্রু আর সর্বোপরি ধারাবাহিক উজ্জীবিত ফিল্ডিং। সব ধারাবাহিকতা ধরে রেখে এবারতো বিশ্ব জয়ই করে ফেলল যুবারা। এবার পালা বড়দের।

দুর্নীতি মাদক ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে অভিযান চলবে

সমাজের অবক্ষয় রোধে দুর্নীতি, মাদক ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আমরা ইতিমধ্যে মাদক, সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গিবাদ এবং দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করেছি। সুতরাং দুর্নীতি, মাদক ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে চলমান অভিযান অব্যাহত থাকবে। গতকাল রোববার সকালে মিরপুর সেনানিবাসে কমান্ড্যান্ট, সামরিক বাহিনী কমান্ড ও স্টাফ কলেজ (ডিএসসিএসসি) কোর্সের সমাপনী এবং গ্র্যাজুয়েশন সনদ বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি আরো বলেন, তার সরকার দেশের যুব সমাজের যোগ্যতা, জ্ঞান এবং শক্তিকে দেশের স্বার্থে কাজে লাগাতে চায়।

বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনী এখন জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অবদান রেখে চলেছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমি তাদের আধুনিক বাহিনী হিসেবে গড়ে তুলতে চাই, যাতে তারা যেকোনো দেশের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে পারে এবং যেকোনো পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে পারে। সশস্ত্র বাহিনী বিশ্বের বিভিন্ন দেশে যেখানে যেখানে কাজ করেছে, মানবিক সেবা প্রদানের মাধ্যমে সেখানকার মানুষের হৃদয় জয় করেছে। আমি যখন বিদেশে যাই বিভিন্ন রাষ্ট্রপ্রধান বা সরকার প্রধান তাদের সঙ্গে যখন দেখা হয়, যারা আপনাদের সঙ্গে কাজ করেছে, তারা যখন প্রশংসা করে গর্বে আমার বুক ভরে যায়।

শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের সশস্ত্র বাহিনী আমাদের প্রিয় মাতৃভূমির স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষার সুমহান দায়িত্ব যেমন পালন করছে, আমাদের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের ক্ষেত্রেও যথেষ্ট অবদান রেখে যাচ্ছে। কিন্তু একটি বিষয় বিশেষভাবে দৃষ্টি দেয়ার জন্য আমি অনুরোধ করব, সেটা হচ্ছে সমাজে যখন ‘ব্যাধি’ দেখা যায় সেটা নিয়ে।
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রণীত প্রতিরক্ষা নীতিমালার আলোকে ফোর্সেস গোল ২০৩০ প্রণয়নের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, এই ১১ বছর আমি মনে করি, আমাদের সশস্ত্র বাহিনীকে সর্বক্ষেত্রে আমরা আধুনিক সাজ সরঞ্জাম ও প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রে যথেষ্ট উন্নতি সাধন করতে পেরেছি।

গ্রামপর্যায়ে উন্নয়নের ছোঁয়া পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্য তুলে ধরে তিনি বলেন, কোনো গ্রাম আর অবহেলিত থাকবে না। গ্রামের মানুষ যারা বসবাস করে তারা সকল প্রকার নাগরিক সুবিধা পাবে। সেইভাবেই আমরা আমাদের প্রতিটি গ্রামকে সাজাতে চাই, গড়ে তুলতে চাই এবং কর্মসংস্থানের ব্যবস্থাও আমরা করে দিতে চাই।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের একটি মানুষও গৃহহারা থাকবে না, ভূমিহীন থাকবে না, বিনা চিকিৎসায় মারা যাবে না, শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত হবে না। সেই নীতিমালা নিয়েই আমরা রাষ্ট্রপরিচালনা করছি। সে ক্ষেত্রে যথেষ্ট অগ্রগতি আমরা লাভ করেছি।

আইএসপিআরের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কোর্স সম্পন্নকারী অফিসারদের মাঝে গ্র্যাজুয়েশন সনদপত্র (পিএসসি) বিতরণ করেন। প্রধানমন্ত্রী তার ভাষণে সকল গ্র্যাজুয়েটদেরকে সাফল্যের সাথে কোর্স সম্পন্ন করার জন্য অভিনন্দন জানান। তিনি তাদের সকলকে নতুন দায়িত্বে মনোযাগী হয়ে জাতীয় উন্নয়নে অবদান রাখার জন্য উপদেশ প্রদান করেন। তিনি সামরিক বাহিনী কমান্ড ও ষ্টাফ কলেজের উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে কলেজের কমান্ড্যান্ট মেজর জেনারেল মো. এনায়েত উল্ল্যাহ স্বাগত ভাষণ দেন। কমান্ড্যান্ট তার ভাষণে বলেন, এ বছরের গ্রাজুয়েশন অনুষ্ঠান একটি বিশেষ তাৎপর্য বহন করে কেননা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর এক মহতী লগ্নে এই গ্রাজুয়েশন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এ বছর ডিএসসিএসসি ২০১৯-২০২০ কোর্সে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ১২৫ জন অফিসার, বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ৩৪ জন অফিসার, বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর ২২ জন অফিসার এবং চীন, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, কুয়েত, মালয়েশিয়া, মালদ্বীপ, নেপাল, নাইজেরিয়া, পাকিস্তান, ফিলিস্তিন, ফিলিপাইন, সৌদিআরব, সিয়েরালিয়ন, দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলংকা, সুদান, তানজানিয়া, তুরস্ক, উগান্ডা, যুক্তরাষ্ট্র এবং জাম্বিয়া থেকে আগত ৫৪ জন অফিসারসহ সর্বমোট ২৩৫ জন প্রশিক্ষণার্থী অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত মন্ত্রী, ভারপ্রাপ্ত সেনাবাহিনী প্রধান লেফটেন্যান্ট জেনারেল মো.শামসুল হকসহ উচ্চপদসহ সামরিক ও অসামরিক কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

ছুটির দিনে উপচে পড়া ভিড়

সাপ্তাহিক ছুটির দিন গতকাল শুক্রবার ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় ক্রেতা-দর্শনার্থীদের ছিল উপচেপড়া ভিড়। মেলার আশপাশের রাস্তাগুলো লোকে লোকারণ্য হয়ে যায়। সকালে মেলার গেট খোলার পর থেকেই এমন ভিড় শুরু হয়। বিকেল নাগাদ ক্রেতা-দর্শনার্থীর সংখ্যা কয়েক গুণ বেড়ে যায়। ২৫ তম ঢাকা বাণিজ্য মেলার ১৭তম দিনে মেলায় নারী, শিশু, তরুণ-তরুণীসহ ক্রেতা-দর্শনার্থী এবং সর্বস্তরের মানুষের উপস্থিতিতে কেনাকাটাও জমে উঠে। খুশি বিক্রেতারাও। এদিকে মূল প্রবেশদ্বার থেকে শুরু করে মেলা প্রাঙ্গণের আশপাশে কঠোর নিরাপত্তা বলয় গড়ে তুলেছে আইনশৃংখলা বাহিনী। পুলিশসহ অন্যান্য আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা মেলা প্রাঙ্গণে মোতায়েন রয়েছেন।
সরেজমিনে দেখা যায়, সকাল থেকেই ক্রেতা-দর্শনার্থীরা আসতে শুরু করে। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মেলার গেটে প্রবেশের লাইনও লম্বা হতে থাকে। মানুষের ভিড়ে মেলা প্রবেশ দ্বারে পা ফেলার জায়গা ছিল না। মেলায় আগত দর্শনার্থীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ছুটির দিন হওয়ায় দিনভর বাণিজ্য মেলায় ঘুরে বেড়াতে আগেভাগেই আসেন তারা। বিক্রয় কর্মীরা জানান, মেলা উপলক্ষে বিভিন্ন সামগ্রীতে রয়েছে বিশেষ ছাড়। স্টলগুলোতে গ্রাহকরা আসেন, পণ্য দেখছেন এবং অনেকেই তাদের পছন্দ মতো পণ্য কিনেন।

মিরপুর ১০ নম্বর থেকে সপরিবারে মেলায় আগত আবুল কালাম আজাদ বলেন, মেলায় পণ্যের দাম বেশি। বিক্রেতারা চমৎকার সাজসজ্জায় স্টল সাজিয়েছেন, আর সুযোগ বুঝে বেশি দাম হাঁকাচ্ছেন।
উল্লেখ্য, এ বছর মেলায় ভারত, পাকিস্তান, চীন, মালয়েশিয়া, ইরান, থাইল্যান্ড ও যুক্তরাষ্ট্রসহ ২১টি দেশ অংশ নিচ্ছে। মেলায় রয়েছে সাধারণ, প্রিমিয়ার, সংরক্ষিত, বিদেশি, সাধারণ মিনি, সংরক্ষিত মিনি, প্রিমিয়ার মিনি, বিদেশি মিনি প্যাভেলিয়ন, সাধারণ ও প্রিমিয়ার স্টল, ফুড স্টল, রেস্তোরাঁসহ ১৩টি ক্যাটাগরিতে ৫৮০টি স্টল।

রাজধানীর উত্তরা থেকে মেলায় আসা রিয়াদ হাসান জানান, শুক্রবারের ছুটি উপভোগ করার জন্য পরিবারের সবাইকে সাথে নিয়ে মেলায় ঘুরতে এসেছি। মেলা থেকে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কেনারও ইচ্ছা আছে। তিনি বলেন, আগে ঘুরাঘুরি করে মেলার বিভিন্ন স্টলগুলো দেখে পরে কেনা-কাটা করবো।

টেস্টি ট্রিট স্টলের কর্মচারী আদনান জানান, শুক্রবারের ছুটির দিনে সকাল ১০টার পর থেকেই মেলা প্রাঙ্গণে সব বয়সী দর্শনার্থী ও ক্রেতাদের ভিড় হতে শুরু হয়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভিড় বাড়তে থাকে। অন্যান্য দিনের তুলনায় এই দিন আমাদের বেচাকেনাও ভালো।
এ বছরও মেলায় রয়েছে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সমৃদ্ধ বঙ্গবন্ধু প্যাভিলিয়ন, ই-শপ, শিশুপার্ক, রক্ত সংগ্রহ কেন্দ্র, প্রাথমিক চিকিৎসাকেন্দ্র, মা ও শিশু কেন্দ্র, ফুলের বাগান ও এটিএম বুথ। ১ জানুয়ারি শুরু হওয়া এ মেলা চলবে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত ক্রেতা-দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকবে মেলা। প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য মেলায় প্রবেশে টিকিটের মূল্য ৩০ টাকা ও অপ্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ২০ টাকা।

করোনা ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৯০৮, সিঙ্গাপুরে আশঙ্কাজনক ৬, আক্রান্ত এক বাংলাদেশি

করোনা ভাইরাস মহামারিতে মৃত্যুর মিছিল থামছেই না।

এ পর্যন্ত সবচেয়ে ভয়াবহ দিন গেছে রোববার। শুধু এদিনই মারা গেছেন ৯৭ জন। এ নিয়ে চীনে এই ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো ৯০৮।

একই সঙ্গে প্রথমবারের মতো সিঙ্গাপুরে একজন বাংলাদেশি শ্রমিক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। তাকে একটি হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউতে) রাখা হয়েছে। এ বিষয়টি মিডিয়াকে নিশ্চিত করেছেন সিঙ্গাপুরে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার মো. মোস্তাফিজুর রহমান।  এ খবর দিয়েছে অনলাইন বিবিসি সহ বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম। সিঙ্গাপুরের স্ট্রেইট টাইমস সেখানকার স্বাস্থ্য বিভাগকে উদ্ধৃত করে জানিয়েছে, সেখানে আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছেন ৬ জন।

সারা চীনে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪০ হাজার ১৭১। চিকিৎসা বিষয়ক পর্যবেক্ষণের অধীনে রাখা হয়েছে এক লাখ ৮৭ হাজার ৫১৮ জনকে। নতুন করোনা ভাইরাস অনুসন্ধানের জন্য বেইজিংয়ে একটি বিশেষজ্ঞ দল পাঠিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। চীনা তথ্যমতে, এ পর্যন্ত চিকিৎসা নিয়ে ভাল হয়েছেন ৩ হাজার ২৮১ জন। তাদেরকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

ওদিকে নতুন চন্দ্রবর্ষের ছুটি শেষে আজ সোমবার লাখ লাখ চীনা নাগরিক কাজে ফিরছেন। ৩১ শে জানুয়ারি পর্যন্ত এই ছুটি ছিল। কিন্তু ভাইরাস সংক্রমণের কারণে এই ছুটি বর্ধিত করা হয়েছিল। আজই তারপর নতুন করে সেখানে স্বাভাবিক কর্মকা- শুরু হওয়ার কথা। তবে পূর্ব সতর্কতামূলক ব্যবস্থা বহাল থাকবে।.

আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত বস্তিতে তাবিথ

সদ্য অনুষ্ঠিত ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে অংশ নেওয়া বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল বলেছেন, বস্তিতে আগুন লাগে, তদন্ত কমিটিও হয়। কিন্তু কোনো তদন্ত প্রতিবেদন জনসম্মুখে প্রকাশ করা হয় না। প্রতিটি তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করতে হবে।

শনিবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর বনানীর টিঅ্যান্ডটি বস্তিতে আগুনে ক্ষতিগ্রস্তদের দেখতে গিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

ভোর পৌনে ৪টার দিকে টিঅ্যান্ডটি বস্তিতে আগুন লাগে। সকাল ৭টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। বেলা ১১টার দিকে বস্তিতে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর পাশে দাঁড়ান তাবিথ আউয়াল।

এ সময় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুকসহ বিএনপি সমর্থিত স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী মিজানুর রহমান ও ফারুক ভূঁইয়াসহ নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

সহকারী শিক্ষকদের বেতন বাড়লো

বেতন বাড়ল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের। আগে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিক্ষকরা ১৪তম গ্রেড এবং প্রশিক্ষণবিহীন শিক্ষকরা ১৫তম গ্রেডে বেতন পেতেন। এখন দুই গ্রেডকে একীভূত করে একটি গ্রেড ১৩তম তে বেতন কাঠামো নির্ধারণ করা হয়েছে। গতকাল রবিবার এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

প্রজ্ঞাপনে প্রশিক্ষণবিহীন ও প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত একীভূত করে একটি গ্রেড নির্ধারণ করা হয়েছে। যদিও সহকারী শিক্ষকদের দাবি ছিল প্রধান শিক্ষকদের পরের ধাপে বেতন কাঠামো নির্ধারণ করা। এই দাবিতে গত পাঁচ বছর ধরে আন্দোলন করছে সহকারী শিক্ষকরা।

সম্প্রতি প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সহকারী শিক্ষকদের ১২তম গ্রেডে বেতন উন্নীতকরণের প্রস্তাব অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাঠায়। এরপর গত বছরের ৮ সেপ্টেম্বর ১২তম গ্রেডে উন্নীতকরণের সুযোগ নেই মর্মে প্রস্তাবটি প্রত্যাখ্যান করে অর্থ মন্ত্রণালয়। এরপর আবার ১৩তম গ্রেডে বেতন নির্ধারণের প্রস্তাব পাঠানো হয়। গত ৭ নভেম্বর ১৩তম গ্রেডে বেতন উন্নীতকরণে এই প্রস্তাবে সম্মতি দেয় অর্থ মন্ত্রণালয়। এরপর নানা প্রক্রিয়া শেষে গতকাল প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন জারি করল।

তবে ১৩তম গ্রেডে বেতন নির্ধারণে খুশি নন সহকারী শিক্ষকরা। শিক্ষকরা বলেন, আমাদের দাবি সহকারী শিক্ষকদের ১১তম গ্রেড ও প্রধান শিক্ষকদের দশম গ্রেড নির্ধারণ।

৯২তম অস্কারে সেরার পুরস্কার পেলেন যারা

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় লস অ্যাঞ্জেলেসের হলিউড অ্যান্ড হাইল্যান্ড সেন্টারের ডলবি থিয়েটারে আয়োজিত  ৯২তম অস্কারের পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে সেরা ফিচার ছবি নির্বাচিত হয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার ‘প্যারাসাইট’। সেরা অভিনেতা ‘জোকার’ ছবির জন্য ওয়াকিন ফিনিক্স। সেরা পার্শ্ব অভিনেতা নির্বাচিত হয়েছেন ব্রাট পিট।

এক নজরে এবারের অস্কার বিজয়ীরা
সেরা অভিনেতা :ওয়াকিন ফিনিক্স(জোকার)
সেরা পার্শ্ব অভিনেতা: ব্রাড পিট (ওয়ান্স আপন অ্যা টাইম … ইন হলিউড)
সেরা পার্শ্ব অভিনেত্রী: লরা ডার্ন (ম্যারিজ স্টোরি)
সেরা ফিচার ছবি: প্যারাসাইট
ফিচার প্রামাণ্যচিত্র: আমেরিকান ফ্যাক্টরি
সংগীত (মৌলিক গান): (আই এম গো’না) লাভ মি এগেইন, ছবি- রকেট ম্যান
সংগীত (মৌলিক স্কোর):জোকার
সেরা প্রোডাকশন ডিজাইন: ওয়ান্স আপন অ্যা টাইম … ইন হলিউড)
মেকআপ অ্যান্ড হেয়ারস্টাইল: বোম্বশেল
ভিজ্যুয়াল ইফেক্ট : ১৯১৭
সেরা শব্দ মিশ্রণ : ১৯১৭
সেরা সিনেমাটোগ্রাফি:রজার ডিকিন্স (১৯১৭)
সেরা ছবি সম্পাদনা: ফোর্ড ভার্সাস ফেরারি
সেরা অ্যানিমেশন ছবি: টয় স্টোরি ৪
সেরা অ্যানিমেশন স্বল্পদৈর্ঘ্য: হেয়ার লাভ
সেরা মৌলিক চিত্রনাট্য: বুন, জুন হু (প্যারাসাইট)
সেরা অ্যাডাপ্টেড চিত্রনাট্য: তাইকা ওয়েইটিটি (জোজো র‌্যাবিট)
লাইভ অ্যাকশন শর্ট ফিল্ম: দ্য নেইবার্স উইনডো

সেরা অভিনেত্রী রেনে জেলওয়েগার

আমেরিকান প্রয়াত অভিনেত্রী, গায়িকা জুডি গারল্যান্ডের চরিত্রে অভিনয়ের জন্য অস্কারের এবারের আসরে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার জিতে নিয়েছেন রেনে জেলওয়েগার। এ বিভাগে মনোনীত ছিলেন সিনথিয়া এরিভো (হ্যারিয়েট), স্কারলেট জোহানসন (ম্যারিজ স্টোরি), সাওরসে রোনান (লিটল ওম্যান), চার্লিজ থেরন (বম্বশেল)। পুরস্কার পেয়ে উচ্ছ্বসিত এই অভিনেত্রী বলেন, ‘মিসেস গারল্যান্ড, তুমি সেইসব হিরোদের একজন যারা আমাদের এক করেছ এবং আমাদের সংজ্ঞায়িত করেছে। এবং এটা কেবল তোমার জন্যই হয়েছে।’

উল্লেখ্য, জীবদ্দশায় এ পুরস্কার পাননি প্রয়াত এই অভিনেত্রী। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের লস অ্যাঞ্জেলেসের হলিউড অ্যান্ড হাইল্যান্ড সেন্টারের ডলবি থিয়েটারে ৯ জানুয়ারি রাতে (বাংলাদেশ সময় অনুযায়ী ১০ ফেব্রুয়ারি সকাল) শুরু হয় চলচ্চিত্রের দুনিয়ার সবচেয়ে সম্মানজনক পুরস্কার অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডসের (অস্কার) ৯২তম আয়োজন। প্রতি বছরের মতো এবারও সেরা ছবি, সেরা পরিচালক, সেরা অভিনয়শিল্পী, সেরা প্রামাণ্যচিত্রসহ ২৪টি বিভাগে পুরস্কার দিচ্ছে অ্যাকাডেমি অব মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেস।

এবিসি নেটওয়ার্কের মাধ্যমে এই আয়োজন সরাসরি সম্প্রচার হচ্ছে বিশ্বের ২২৫টিরও বেশি দেশে। বাংলাদেশের দর্শকরা ভোর ৬টা থেকে স্টার মুভিজ ও স্টার মুভিজ এইচডি চ্যানেলে দেখতে পারছেন এবারের অস্কারযজ্ঞ।

এবার ৯২তম অস্কারে সেরা সহ-অভিনেতা ক্যাটাগরিতে পুরস্কার জিতে নিয়েছেন ব্র্যাড পিট। ‘ওয়ান্স আপন অ্যা টাইম ইন হলিউড’ ছবির জন্য এই পুরস্কার জিতেছেন তিনি। সেরা এনিমেটেড ফিচার ফিল্মের পুরস্কার পেয়েছে ‘টয় স্টোরি ফোর’।

স্বল্পদৈর্ঘ্য এনিমেটেড ছবির পুরস্কার পেয়েছে ‘হেয়ার লাভ’। এছাড়া কোরিয়ার ‘প্যারাসাইট’ সেরা মৌলিক চিত্রনাট্য, ‘জোজো র্যা বিট’ সেরা অ্যাডাপ্টেড চিত্রনাট্য, ‘দ্য নেবার্স উইন্ডো’ সেরা লাইভ অ্যাকশন শর্ট, ‘ওয়ান্স আপন আ টাইম…ইন হলিউড’ সেরা প্রোডাকশন ডিজাইন, ‘লার্নিং টু স্কেটবোর্ড ইন আ ওয়ারজোন’ সেরা প্রামাণ্যচিত্র শর্ট-এর পুরস্কার পেয়েছে।

প্রাথমিক স্কুলের ৩৭ হাজার প্রার্থী নিয়োগের দাবিতে ঢাকায় বিক্ষোভ

দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগের দাবিতে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করছে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ৩৭ হাজার চাকরি প্রার্থী। গতকাল রোববার বিভিন্ন জেলা থেকে আসা এসব প্রার্থীরা রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জড়ো হয়ে মানববন্ধনের পাশাপাশি বিক্ষোভ করছেন। অতীতের মতো প্যানেল গঠন করে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের দ্রæততম সময়ের মধ্যে প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেয়ার দাবি জানিয়েছেন তারা।
বিক্ষোভকারীদের অনেকে জানান, মামলা জটিলতার কারণে ২০১৪ সালের পর থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত প্রাথমিকে কোনো শিক্ষক নিয়োগ হয়নি। আর এই দীর্ঘ সময়ে নিয়োগ বন্ধ থাকায় প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে চরমভাবে শিক্ষকের সঙ্কট তৈরি হয়। শিক্ষকের এই সঙ্কট বর্তমানে আরো প্রকট আকার ধারণ করেছে।
বিক্ষুব্ধরা বলেন, অনেক বিদ্যালয়ে শিক্ষক সঙ্কটের কারণে দেশের ভবিষ্যত কর্ণধার শিশুদের পাঠদান কার্যক্রমই মুখ থুবড়ে পড়েছে। এই অবস্থায় ২০১৮ সালে নিয়োগ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার পরেও সরকার আমাদের নিয়োগ দিচ্ছে না। আমরা চাই প্যানেল গঠন করে অতীতের মতো আমরা যারা ৩৭ হাজার একশ’ ৪৮ জন প্রার্থী লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছি তাদের মধ্য থেকে নিয়োগ দেয়া হোক।
‘প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগে প্যানেল চাই’ কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের জানান, ২০১৮ সালের প্রাইমারি নিয়োগের লিখিত পরীক্ষায় আমরা যারা উত্তীর্ণ হয়েছি এবং ভাইভা পরীক্ষায় অংশ নিয়েছি তাদের মধ্যে থেকে নিয়োগ দেয়া হোক। অতীতের বছরগুলোর মতো প্যানেল গঠন করে নিয়োগ কার্যক্রম পরিচালনারও দাবি জানান তিনি।
‘প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগে প্যানেল চাই’-এর কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মো. আব্দুল বাতেন রাজিব জানান, প্যানেল গঠন করে শিক্ষক নিয়াগের নজির নতুন নয়। এর আগেও ২০১০, ২০১২, ২০১৩ ও ২০১৪ সালেও প্যানেল গঠন করে প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এবছর এমনিতেই যেহেতু চার বছর পর এই নিয়োগ পরীক্ষা নেয়া হয়েছে তাই বিষয়টি বিশেষভাবে বিবেচনা করে দেখা দরকার। কারণ এবছর নিয়োগ না পেয়ে অনেক প্রার্থীরই বয়স আর থাকবে না। এছাড়া যেহেতু শিক্ষকেরও প্রচন্ডভাবে সংকট রয়েছে তাই আমরা চাই আমাদের যৌক্তিক দাবি মেনে নিয়ে অতি দ্রুত প্যানেল গঠন করে উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মধ্য থেকে নিয়োগ দেয়া হোক।
তিনি আরও জানান, প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক পদের নিয়োগে লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেন প্রায় ২৪ লাখ প্রার্থী। সেখান থেকে উত্তীর্ণ হন মাত্র ৫৫ হাজার ২৯৫ জন। কিন্তু এই ৫৫ হাজারের মধ্যেও সবাই আবার ভাইভা পরীক্ষায় অংশ নেননি। কারণ অনেকের অন্যত্র চাকরি হয়ে গেছে। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের মধ্যে ভাইভাতে অংশ নেয়া সবাইকে নিয়োগর জন্যই আমরা একটি প্যানেল গঠনের জোর দাবি জানাচ্ছি।